1. admin@bdsomoy.com : Bd Somoy : Bd Somoy
মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৮:২৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
অপরাধী যেই হোক না কেন দোষ করলে শাস্তি তাকে পেতেই হবে : পুলিশ সুপার অস্ত্রসহ আটকের ৫দিনেও নেওয়া হয়নি আইনগত পদক্ষেপ সুনামগঞ্জে সুনামগঞ্জের মনবেগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত বরিশালের কয়েকটি হোটেল থেকে ক্রেতা ও বিক্রেতা গ্রেফতার কৃষকলীগের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জে বৈদ্যুতিক খুটির সাথে ধাক্কা লেগে ২মোটর সাইকেল আরোহী নিহত সুনামগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগপ্রাপ্ত সকল সহকারী শিক্ষক শিক্ষিকার স্মারকলিপি প্রদান সুনামগঞ্জে বুড়িমারী স্থলবন্দরে ৫ ঘন্টা ইন্ডিয়া ও বাংলাদেশের গাড়ি যাতায়াত বন্ধ পরিকল্পনামন্ত্রী মান্নানের হাত থেকে সনদপত্র গ্রহন করেন : আবিদা সুলতানা বেনাপোলে পুলিশের পৃথক অভিযানে গাজা ও হিরোইনসহ দুইজন গ্রেফতার

বঙ্গবন্ধু, বিপিএল এবার নতুন চ্যাম্পিয়ন পেলো : রাজশাহী রয়্যালসকে

  • প্রকাশিত : শনিবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২০
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

স্পোর্টস ডেস্ক : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯, ১০:৫০ পিএম

বঙ্গবন্ধু, বিপিএল এবার নতুন চ্যাম্পিয়ন পেলো রাজশাহী রয়্যালসকে। ফাইনালের দুই দল- খুলনা টাইগার্স আর রাজশাহী রয়্যালসের মধ্যে কোনোটিই এর আগে শিরোপার স্বাদ পায়নি। তবে শেষ পর্যন্ত দুই দলের মধ্যে কারা শেষ হাসি হাসে, সেটার জন্যই ছিল সব রকম অপেক্ষা। অবশেষে সেই অপেক্ষার অবসান ঘটালো রাজশাহী রয়্যালস।

বঙ্গবন্ধু প্রিমিয়ার লীগের নতুন চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ট্রফি হাতে তুলে নিলো রাজশাহী রয়্যালস। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বিপিএলের উত্তেজনাকর এক ফাইনালে মুশফিকুর রহীমের খুলনা টাইগার্সকে ২১ রানে হারিয়েছে আন্দ্রে রাসেলের রাজশাহী।

১৭১ রান সংগ্রহের লক্ষে মাঠে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় পুরো টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত খেলা খুলনা টাইগার্স। মোহাম্মদ ইরফানের করা প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরের ফেরেন নাজমুল হোসেন শান্ত ( ০ ) । পরের ওভারে আবু জায়েদ রাহির শিকার আরেক ওপেনার মেহেদী হাসান মিরাজ (২) রান করেন। ১১ রানের মধ্যেই ২ উইকেট হারায় খুলনা।

সেখান থেকে দলকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে জান শামসুর রহমান শুভ আর রাইলি রুশো। ইনিংসের ১১তম ওভারে রুশোকে ৩৭ রানে ফিরিয়ে রাজশাহীর মুখে হাসি ফোটান মোহাম্মদ নওয়াজ। দুই ওভার পর খুলনাকে ম্যাচ থেকেই ছিটকে দেন কামরুল ইসলাম রাব্বি। হাফসেঞ্চুরিয়ান শুভকে ৫২ রানে ফেরানোর সঙ্গে মারকুটে আরেক ব্যাটসম্যান নাজিবুল্লাহ জাদরানকেও (৪) তুলে নেন ডানহাতি এই পেসার।

খুলনার শেষ ভরসা হয়ে ছিলেন মুশফিক। আন্দ্রে রাসেলের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে তিনিও শেষতক বোল্ড হয়ে গেলে শিরোপা স্বপ্ন ভেঙে যায় দলটির। ১৫ বলে ২ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় খুলনা অধিনায়ক করেন ২১। রাজশাহীর পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন আন্দ্রে রাসেল, মোহাম্মদ ইরফান, ও কামরুল ইসলাম রাব্বি।

এর আগে ইরফান শুক্কুরের হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ৪ উইকেটে ১৭০ রানের চ্যালেঞ্জিং পুঁজি দাঁড় করে রাজশাহী রয়্যালস। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা অবশ্য তেমন ভালো ছিল না রাজশাহী রয়্যালসের। লিটন দাসের সঙ্গে আফিফ হোসেনের ১৫ বলের উদ্বোধনী জুটিতে আসে মাত্র ১৪ রান।

৮ বলে ১০ রান করে আফিফ আউট হন মোহাম্মদ আমিরের বলে। তবে মেহেদী হাসান মিরাজ দৌড়ে এসে যেভাবে ক্যাচটি নিয়েছেন, আসল কৃতিত্বটা দিতে হবে তাকেই। সঙ্গী হারিয়ে সাবধান হয়ে যান লিটন। খেলছিলেন দেখেশুনে, ঠিক টি-টোয়েন্টির আমেজ ছিল না তার ব্যাটে। শুক্কুরের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়ে লিটন সাজঘরে ফেরেন ২৮ বলে ২৫ রান করে।

এরপর শোয়েব মালিকও সুবিধা করতে পারেননি। ১৩ বল খেলে মাত্র ৯ রানে রবি ফ্রাইলিংককে তুলে মারতে গিয়ে শান্তর ক্যাচ হন। তবে অপরপ্রান্তে নিজের হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন শুক্কুর। দারুণ ব্যাটিংয়ে এগিয়ে চলা এই ব্যাটসম্যানকে অবশেষে থামান মোহাম্মদ আমির। ৩৫ বলে ৬ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় শুক্কুর করেন ৫২ রান।

পরের সময়টায় চালিয়ে খেলে দলের পুঁজি বড় করেছেন আন্দ্রে রাসেল আর মোহাম্মদ নওয়াজ। শহীদুলের করা ১৭তম ওভারে অবশ্য লংঅনে ক্যাচ দিয়েছিলেন রাসেল। ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার তখন মাত্র ৯ রানে। সেই ক্যাচটি দৌড়ে এসে হাতে নিয়েও ফেলে দেন শান্ত।

শেষ পর্যন্ত রাসেল ১৬ বলে ৩ ছক্কায় অপরাজিত থাকেন ২৭ রানে। তার চেয়ে বেশি ভয়ংকর ছিলেন মোহাম্মদ নওয়াজ। পাকিস্তানি এই ব্যাটসম্যান ২০ বলে ৬ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় খেলেন হার না মানা ৪১ রানের ইনিংস। খুলনার পক্ষে ২টি উইকেট নেন মোহাম্মদ আমির। একটি করে উইকেট রবি ফ্রাইলিংক আর শহীদুল ইসলামের।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৭ । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।